Saturday , June 6 2020
প্রচ্ছদ / সারাদেশ / ২ প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে নিহত ১

২ প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে নিহত ১

সদর উপজেলার চর সামাইয়া ইউনিয়নে নির্বাচনী দ্বন্দ্বের জেরে সিরাজ উদ্দিন নামে এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শুক্রবার রাতে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। নিহত সিরাজ উপজেলার চর সামাইয়া ইউনিয়নের শান্তিরহাট এলাকার বাসিন্দা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গত বৃহস্পতিবার দিনে ও রাতে চার সামাইয়া ইউনিয়নের সাত নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ সদস্য পদপ্রার্থী মো. জাহাঙ্গীর সনি ও মো. বজলুর রহমানের সমর্থকদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। হামলা-পাল্টা হামলায় ব্যাপক ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

সিরাজের স্ত্রী কমলা বেগম অভিযোগ করে বলেন, ‘সাধারণ সদস্য পদপ্রার্থী ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি মো. জাহাঙ্গীর সনি ও তার ছেলেরা আমার স্বামীকে ঘর থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের ওপর ব্যাপক মারধর করে। আগে থেকেই সেখানে সন্ত্রাসীরা অবস্থান নিয়েছিল। রাতে তিনি বুকে ব্যথা অনুভব করেন এবং মারা যান।’

সাধারণ সদস্য পদপ্রার্থী মো. বজলুর রহমান বলেন, ‘মো. জাহাঙ্গীর সনি ও তার ছেলেরা সিরাজকে ঘর থেকে টেনে বের করে নিয়ে গিয়ে মারধর করে। এতে সিরাজ অসুস্থ হয়ে মারা যান।’

তবে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি মো. জাহাঙ্গীর সনি এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘এসব ঘটনা মিথ্যা। আপনাদের (সাংবাদিক) দেখে নাটক সাজাচ্ছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘প্রচার চালানোর সময় আমার সমর্থক ও বজলুর সমর্থকদের মধ্যে ওই স্থানে তর্কবিতর্ক হয়েছে। সংঘর্ষের কথা আমি শুনেছি। তবে তখন আমি সেখানে ছিলাম না। আমি নির্বাচন করছি, তাই আমাকে বিপদে ফেলার জন্য মিথ্যা নাটক সাজানো হচ্ছে।’

সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর খায়রুল কবির জানান, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের মধ্যে ব্যাপক মারামারি ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

ওসি আরো জানান, সিরাজ অসুস্থ হয়ে মারা গেছে। তার মৃত্যু রহস্যজনক বলে মনে হচ্ছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন হাতে পেলে আসল ঘটনা জানা যাবে। তাই লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিহত সিরাজ উদ্দিনের স্ত্রী ও ছয় সন্তান রয়েছে। সকালে সিরাজের বাড়ি গিয়ে দেখা যায় স্বজনদের কান্নায় সেখানকার পরিবেশ ভারী হয়ে উঠেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.