Monday , October 14 2019
প্রচ্ছদ / অর্থ-বানিজ্য / বাংলাদেশ ব্যাংকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে

বাংলাদেশ ব্যাংকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে

দু’মাসেও বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ অ্যাকাউন্ট থেকে প্রায় ৮০০ কোটি টাকা চুরির ঘটনা গোপন রাখায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। এজন্য কেন্দ্রীয় এই ব্যাংকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

রোববার দুপুরে সচিবালয়ে ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলার সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘এ ঘটনার পর দুই মাস অতিবাহিত হলেও আমাকে জানানো হয়নি। এটি বাংলাদেশ ব্যাংকের ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ।’

অবশ্য এর আগে গত মঙ্গলবারেই (৮ মার্চ) বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষেই সাফাই গেয়েছেন অর্থমন্ত্রী। এ অর্থ লোপাটে বাংলাদেশ ব্যাংকের দোষ নেই বলে জানিয়েছিলেন তিনি। প্রয়োজনে রিজার্ভ ব্যাংকের বিরুদ্ধে মামলা করবেন বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্রে ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংকে রক্ষিত বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাব থেকে ১০ কোটি ডলার চীনা হ্যাকাররা হাতিয়ে নেয় বলে সম্প্রতি ফিলিপিন্সের একটি সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয়। সোমবার (৭ মার্চ) চুরি যাওয়া অর্থের একটি অংশ উদ্ধারের দাবি করে বাংলাদেশ ব্যাংক। তবে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ জানিয়েছে এ বিষয়ে তাদের কোনো দায় নেই।

মুহিত বলেছিলেন, ‘ফেডারেল রিজার্ভের যারা এটা দেখাশোনা করেন তাদের কোনো গোলমাল হয়েছে, বাংলাদেশ ব্যাংকের এখানে দোষ কিছু নেই। কারণ আমি জেনেছি, ওখান থেকে তারা (ফেডারেল রিজার্ভ) অর্থ সরানোর বিষয়ে একটি নির্দেশনা পেয়েছে বলে বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে বার্তা প্রেরণ করে, এটাকে কনফার্ম করতে বলে। তখন বাংলাদেশ ব্যাংক বলেছে, এটা ফলস। কিন্তু বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা পাওয়ার আগেই লেনদেন সম্পন্ন হয়। সুতরাং ফেডারেল রিজার্ভ কোনো মতেই তাদের দায়িত্ব অস্বীকার করতে পারে না। যদিও তারা বলেছে তাদের কোনো দায় নেই।’

যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ এর দায় অস্বীকারের বিষয়ে কি পদক্ষেপ নেবেন জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা তাদের বিরুদ্ধে মামলা প্রয়োজনে মামলা করবো। তাদের কাছে টাকা রাখছি, এর দায় দায়িত্ব তাদের।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.