Thursday , December 9 2021
প্রচ্ছদ / বিনোদন / গ্রেপ্তার অভিনেত্রী সায়নী ঘোষ

গ্রেপ্তার অভিনেত্রী সায়নী ঘোষ

ডেস্ক : পশ্চিমবঙ্গ যুব তৃণমূলের রাজ্য সভানেত্রী তথা টলি অভিনেত্রী সায়নী ঘোষ গ্রেপ্তার হয়েছে। খুনের চেষ্টার অভিযোগে রোববার বিকেলে আগরতলা থানা পুলিশ গ্রেপ্তার করেন তাকে। এর আগে তাকে দীর্ঘক্ষণ পুলিশি জেরা করা হয়, এরপর গ্রেপ্তার করা হয়। ত্রিপুরায় তৃণমূল কংগ্রেসের সেকেন্ড ইন কম্যান্ড তথা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাতিজা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সফরের ঠিক ২৪ ঘণ্টা আগে আগরতলা পূর্ব মহিলা থানা ঘিরে বিজেপির তাণ্ডবের অভিযোগ করেছে তৃণমূল। তাদের অভিযোগ, বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীদের হামলায় রক্তাক্ত হয়েছেন একাধিক তৃণমূল কর্মী এবং নেতা। এই প্রেক্ষিতে টুইট করে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবকে সরাসরি আক্রমণ করেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তার কিছুক্ষণ পরেই সায়নীকে গ্রেপ্তার করা হয়।

জানা যায়, রোববার সকাল থেকেই আগরতলা পূর্ব থানায় ছিলেন সায়নী ঘোষ। তাকে আটক করে প্রথমে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। সায়নীর পাশে থাকতে থানাতেই রয়েছেন তৃণমূলের অন্যান্য নেতার নেত্রী সুস্মিতা-সহ প্রাক্তন সাংসদ অর্পিতা ঘোষ ও কুণাল ঘোষ। সায়নীকে না ছাড়া পর্যন্ত থানাতেই থাকবেন বলে জানিয়েছেন তারা।

এদিকে বিজেপি-র বিরুদ্ধে থানায় ঢুকে হামলা চালানোর অভিযোগ উঠেছে। তৃণমূল নেত্রী আগরতলা পুলিশ সুত্রে জানা গিয়েছে, ‘হিট অ্যান্ড রান’এর অভিযোগে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সায়নী ঘোষকে নিয়ে যাওয়া হয়। তৃণমূল নেতারা আগরতলা মহিলা থানায় ঢোকার পর ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

তৃণমূল নেতৃত্বের অভিযোগ, তাদের থানায় ডেকে এনে পরিকল্পিত ভাবে হামলা চালানো হয়েছে। এই ঘটনায় তৃণমূলের রাজ্য সম্পাদক তথা মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বলেন, ত্রিপুরায় জঙ্গলের রাজত্ব চলছে। থানায় ডেকে এনে মেরে ফেলার পরিকল্পনা ছিলো বলেও অভিযোগ করেন তিনি। সায়নীর বিরুদ্ধে যে মামলা দেওয়া হয়েছে তা পুরোপুরি ভিত্তিহীন বলেও জানান তিনি।

জানা গিয়েছে, আগরতলায় পোলো টাওয়ার হোটেলে হানা দেয় ত্রিপুরার বিপ্লব দেব সরকারের পুলিশ। তৃণমূলের দাবি, মহিলা পুলিশ এসে তৃণমূল নেত্রী সায়নী ঘোষকে প্রথমে নিয়ে যেতে চায়। সেই সময় বাধা দেন অপর এক তৃণমূল নেতা কুণাল ঘোট। তিনি সাফ জানতে চান, সায়নীকে থানায় নিয়ে যাওয়ার নোটিশ কোথায়? এই নিয়ে পুলিশের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয় তৃণমূল নেতার।

সায়নীর বিরুদ্ধে অভিযোগ, গতকাল তিনি মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের সভা চলাকালীন গাড়ির মধ্যে বসে বিজেপি সমর্থকদের উত্যক্ত করেন। যদিও এই অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে পাল্টা দাবি করেন সায়নী ঘোষ। আগরতলার যে হোটেলে সায়নী সহ তৃণমূলের অন্যান্য নেতারা রয়েছেন সেখানে এদিন সকালেই হানা দেয় আগরতলা থানার পুলিশ।

তাদের অভিযোগ, সায়নী ঘোষের গাড়ি ধাক্কা মেরেছে এক ব্যক্তিকে। এছাড়াও সভায় কুরুচিকর মন্তব্য করার অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এদিকে, তৃণমূলের তরফে অভিযোগ করা হয়েছে কিছুক্ষণ আগেই মাথায় হেলমেট পরে বিজেপি কর্মীরা জড়ো হয়েছে পূর্ব আগরতলা থানার বাইরে। দুই দলের মধ্যে খণ্ডযুদ্ধ বেঁধে গেলে তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের গাড়ি ভাংচুর করা হয়।