Wednesday , August 10 2022
প্রচ্ছদ / খেলা / ওয়ানডের সর্বোচ্চ সংগ্রহের তিন রেকর্ডই ইংল্যান্ডের

ওয়ানডের সর্বোচ্চ সংগ্রহের তিন রেকর্ডই ইংল্যান্ডের

ডেস্ক : ২০১৫ ওয়ানডে বিশ্বকাপে ভরাডুবির পর নতুন উদ্দমে জেগে ওঠে ইংল্যান্ড। সেবার বাংলাদেশের বিপক্ষে হেরে গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নেয় দলটি। তবে সেই থেকে সাদা বলের এই ফরম্যাটে নতুন দিশা খুঁজে পায় ইংলিশরা। পরেরবার ২০১৯ ঘরের মাঠের বিশ্বকাপে তো শিরোপাই জিতে নেয় ইয়ন মরগারেন নেতৃত্বে। যা দেশটিকে নিজেদের ইতিহাসে প্রথম ওয়ানডে বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন করে।

ইংল্যান্ড ২০১৬ সালের আগ পর্যন্ত ওয়ানডেতে কখনোই ৪০০ রানের সংগ্রহ পায়নি। সেই দলটিই কিনা কাল ৪৯৮ রানের বিশ্বরেকর্ড গড়ে পঞ্চাশ ওভারের ম্যাচে ৪০০ বা তার বেশি রান তুলেছে ৫বার ! এছাড়া ২০১৫ বিশ্বকাপের পর ওয়ানডেতে ৩৫০ বা তার বেশি দলীয় সংগ্রহ করেছে অন্তত ১০বার।

শুক্রবার নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে প্রথমে ব্যাট করা ইংল্যান্ড ৪ উইকেট হারিয়ে ৪৯৮ রান তোলে। এই সংগ্রহ গড়তে তারা ভেঙেছে নিজেদেরই আগের বিশ্বরের্ড। আমসটেলভিনের ভিআরএ গ্রাউন্ডে ইংল্যান্ডের হয়ে সেঞ্চুরি হাঁকান তিন ব্যাটার। ওপেনার ফিল সল্ট ১২২, ডেভিড মালান ১২৫ ও জস বাটলার অপরাজিত ১৬২ রান করেন। সল্ট ৯৩ বল খেলে ১৪টি চার ও ৩টি ছক্কা মারেন। মালানের ১০৯ বলের ইনিংসে ৯টি চার ও ৩টি ছক্কা ছিল।

ডাচ বোলারদের নিয়ে ছেলেখেলা করেছেন বাটলার ও লিয়াম লিভিংস্টোন। চার নম্বরে নেমে ২৩১ দশমিক ৪২ স্ট্রাইক রেটে ৭০ বল খেলে ৭টি চার ও ১৪টি ছক্কা মারেন সর্বশেষ আইপিএলের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক বাটলার। ছয় নম্বরে নামা লিভিংস্টোন মাত্র ২২ বলে ৬টি করে চার-ছক্কায় অপরাজিত ৬৬ রান করেন। তার স্ট্রাইক রেট ছিল ৩শ।

নেদারল্যান্ডসের স্পিনার ফিলিপ বোইসেভেইনের করা ইনিংসের ৪৬তম ওভারে ৪টি ছক্কা ও ২টি চারে ৩২ রান নেন লিভিংস্টোন। এই নিয়ে ওয়ানডেতে তৃতীয়বার এক ইনিংসে তিন ব্যাটারের সেঞ্চুরি দেখল ক্রিকেট বিশ্ব। এক ইনিংসে তিন ব্যাটারের সেঞ্চুরি করার প্রথম নজির গড়ল ইংল্যান্ড। এর আগে দু’বার এমন কীর্তি গড়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। পরে ইংল্যান্ড ম্যাচটি ২৩২ রানের বিশাল ব্যবধানে জেতে।

এদিন ইংল্যান্ডের দলীয় ছক্কা হয়েছে ২৬টি। যা ওয়ানডেতে বিশ্বরেকর্ডও। এখানেও তারা ভেঙেছে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ২০১৯ সালে গড়া নিজেদেরই ২৫ ছক্কার রেকর্ড।

শিরোনামে লেখা তিন রেকর্ডের আগের দুটি ইংল্যান্ড গড়েছিল অস্ট্রেলিয়া ও পাকিস্তানের বিপক্ষে। ২০১৬ সালের ৩০ আগস্ট ঘরের মাঠ নটিংহ্যামে পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথমে ব্যাট করে ইংল্যান্ড তুলেছিল ৩ উইকেটে ৪৪৪ রান। সেবার বিশ্বরেকর্ড গড়তে ইংলিশরা ভেঙেছিল ২০০৬ সালে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ৪৪৩ রান করা শ্রীলঙ্কার রেকর্ড।

দুবছর পর ২০১৮ সালের ১৯ জুন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সেই নটিংহ্যামেই নিজেদের রেকর্ড ভেঙে ফের বিশ্বরেকর্ড গড়ে ইংল্যান্ড। সেবার প্রথমে ব্যাট করে ৬ উইকেট হারিয়ে ৪৮১ রান করে দলটি।

অথচ দেশে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের মাঝে আয়োজিত গতকালের ম্যাচে আইসিসির সহযোগী দেশ নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে পূর্ণ শক্তির দল পাঠায়নি ইংল্যান্ড। এদিন লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটেও সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডটি নতুন করে লিখিয়েছে ইংল্যান্ড। এতদিন রেকর্ডটি ছিল ইংলিশ কাউন্টি ক্লাব সারের, ২০০৭ সালে গ্লস্টারশায়ারের বিপক্ষে ৪৯৬ করেছিল ক্লাবটি।

ডাচ বোলারদের কেউই ওভারপ্রতি ৮ এর নিচে গড় দেননি। ডাচদের লেগ স্পিনার ফিলিপ বইসেভেইন ১০ ওভারে ১০৮ রান দিয়ে উইকেটশূন্য। যা ওয়ানডেতে সবচেয়ে খরচে বোলিংয়ের তালিকায় শীর্ষ চার!