Wednesday , August 10 2022
প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিশ্বজুড়ে করোনায় বেড়েছে মৃত্যু, কমেছে সংক্রমণ

বিশ্বজুড়ে করোনায় বেড়েছে মৃত্যু, কমেছে সংক্রমণ

ডেস্ক : বিশ্বজুড়ে করোনায় আগের দিনের তুলনায় গত ২৪ ঘণ্টায় বেড়েছে মৃত্যু তবে কমেছে নতুন করে শনাক্ত হওয়া রোগীর সংখ্যা। গত একদিনে সারাবিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে প্রায় ১৮০০ মানুষ। একই সময়ে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৯ লাখেরও বেশি মানুষ। এদিকে গত একদিনে বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে ফ্রান্সে। অন্যদিকে দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে যুক্তরাষ্ট্র। প্রাণহানির তালিকায় এরপরই রয়েছে ব্রাজিল, জার্মানি, তাইওয়ান, কানাডা, ইতালি ও চিলি।

শুক্রবার সকালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় সারাবিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১৭৩৬ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে এক শতাধিক। এতে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৬৩ লাখ ৬৮ হাজার ৯১২ জনে।

একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৯ লাখ ৩১ হাজার ৬০০ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা কমেছে প্রায় ৩০ হাজারের বেশি। এতে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৫ কোটি ৮৫ লাখ ৫৭ হাজার ৪০০ জনে।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে ফ্রান্সে। গত ২৪ ঘণ্টায় এই দেশটিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৬১ হাজার ২৬৫ জন এবং মারা গেছেন ৮৯ জন। করোনা মহামারির শুরু থেকে এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৩ কোটি ১৯ লাখ ৭৪ হাজার ৬০৭ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১ লাখ ৪৯ হাজার ৯৪৩ জন মারা গেছেন।

অন্যদিকে দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে যুক্তরাষ্ট্র। গত ২৪ ঘণ্টায় এই দেশটিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৯১ হাজার ৪৭২ জন এবং মারা গেছেন ৩২০ জন। করোনাভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৯ কোটি ৬৫ হাজার ১৬৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১০ লাখ ৪৫ হাজার ৮০ জন মারা গেছেন।

ফ্রান্স ও যুক্তরাষ্ট্র ব্যতীত বিশ্বের আরও যেসব দেশে শুক্রবার সংক্রমণ-মৃত্যুর উচ্চহার দেখা গেছে, সেসব হলো— ব্রাজিল (নতুন আক্রান্ত ৭৩ হাজার ৩৬৫ জন, মৃত ২৯৭ জন), জার্মানি (নতুন আক্রান্ত ১ লাখ ১৭ হাজার ৭৩২ জন, মৃত ১৩১ জন), তাইওয়ান (নতুন আক্রান্ত ৩১ হাজার ৪৬২ জন, মৃত ১০৫ জন), ইতালি (নতুন আক্রান্ত ১ লাখ ৭ হাজার ২৪০ জন, মৃত ৯৪ জন), রাশিয়া (নতুন আক্রান্ত ৩ হাজার ৩৫৯, মৃত ৫২ জন), অস্ট্রেলিয়া (নতুন আক্রান্ত ৪৩ হাজার ১৩০, মৃত ৬০ জন), কানাডা (নতুন আক্রান্ত ১০ হাজার ৪০৮ জন, মৃত ১০৩ জন) এবং চিলি (নতুন আক্রান্ত ১১ হাজার ৮২ জন, মৃত ৬৮ জন)।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর ২০২০ সালের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে ‘বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে। এদিকে ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম ৩ জনের দেহে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ওই বছরের ১৮ মার্চ দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়।